June 22, 2018, 2:56 pm

রোস্ট, হালিম আর উচ্ছিষ্ট একই জায়গায়

রোস্ট, হালিম আর উচ্ছিষ্ট একই জায়গায়

বিরাট রান্নাঘর। এলোমেলো ও না ঢেকে রাখা চিংড়ির দোপাজা, মুরগির রোস্ট ভর্তি বড় ট্রে। এর পাশে ময়লা কড়াইয়ে রান্না চলছিল গরুর পা দিয়ে নেহাড়ি। পাশে উচ্ছিষ্ট খাবারের ওপর আরেকটি পাত্রে খাসির কলিজা সেদ্ধ রাখা। পাশের আধোয়া হাঁড়ি-পাতিল, চামচ ছড়ানো-ছিটানো। একটি বড় পাত্রে ময়লা পানি। এমনই অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে চারুলতা রেস্টুরেন্টে মুখোরোচক সব খাবার রান্না করা হয়।

শুধু কী তাই, বাসি দুর্গন্ধ মুরগির রোস্ট জাল দেওয়া হচ্ছিল সেখানে। বাসি হালিম মেশানো হচ্ছিল নতুন করে রান্না হালিমের মধ্যে। এভাবে নোংরা পরিবেশে খাবার রান্নার অপরাধে আজ সোমবার চারুতলার মালিককে পাঁচ লাখ টাকা জরিমানা করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভ্রাম্যমাণ আদালত।

অভিযানের সময়ই ঘষে মেজে ঝকঝকে তকতকে করে ফেলা হয় চারুলতার রান্নাঘর। অভিযান শেষে দেখা গেল, রান্নাঘরে উচ্ছিষ্ট খাবার নেই। হাঁড়িগুলো ধুয়ে মুছে রাখা।

খাসির কলিজা আর নেহাড়ি এভাবে রান্নার কারণ কী? আজকের অভিযান চলার সময় জানতে চাইলে চারুলতার পাচক মো. কাওসার প্রথম আলোকে বলেন, এখন ধুয়ে রাখছি। একটু পরে রান্না হইব। রাতের কাস্টমারে (ক্রেতা) খাইব।’

অভিযানের সময় বড় হাঁড়িতে রান্না হতে থাকা হালিম পরীক্ষা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। পরখ করে তিনি দেখেন, আগের দিনের বাসি হয়ে যাওয়া হালিম এর সঙ্গে মেশানো হয়েছে। মুরগির রোস্টগুলো যখন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট যাচাই করছিলেন তখন এগুলো থেকে উৎকট গন্ধ বের হচ্ছিল।

হালিম, রোস্টের মসলাও বাসি। আগের দিনের রেখে দেওয়া মসলা এসব খাবার মেশানো হয়। অস্বাস্থ্যকর নোংরা রান্নাঘর, পচা-বাসি মাংস বা হালিমই নয়; খাবার রান্নার জন্য পোড়া তেলও চারুলতায় ব্যবহার করা হয়। পোড়া তেলসহ কয়েকটি টিনের কৌটাও উদ্ধার করা হয়।

এ ছাড়া খোলা অবস্থায় হোটেলের ডাইনিং রুমে রাখা ছিল ছোলা ভুনা, ঘুগনি, চিকেন রোল, চিকেন সাসলিক।

খাবার ছড়িয়ে রাখা, নোংরা পরিবেশে রান্নার কারণ জানতে চাইলে চারুলতার সহকারী ব্যবস্থাপক মহিবুল্লাহ প্রথম আলোকে বলেন, এখন তো হোটেলে কাস্টমার নাই। দুপুরে রান্নার কাজ চলে। তাই খাবার, মসলা এলোমেলো হয়ে যায়।

আজ ২৫ রমজান পর্যন্ত রাজধানীর বিভিন্ন হোটেল রেস্টুরেন্টে অভিযান চালিয়ে এক কোটি পাঁচ লাখ ৩২ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে বলে জানান ডিএমপির ভ্রাম্যমাণ আদালত নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মশিউর রহমান। র‍্যাবের ভ্রাম্যমাণ আদালত একই সময়ে ঢাকা মহানগরীর হোটেল রেস্টুরেন্টে ৩২ টি অভিযান চালিয়েছে। নোংরা, পচা বাসি খাবার রান্নার কারণে এসব অভিযানে এক কোটি ৮৬ লাখ টাকা আদায় করা হয়েছে বলে র‍্যাবের গণমাধ্যম শাখা থেকে জানানো হয়েছে। সব মিলিয়ে ডিএমপি ও র‍্যাবের অভিযানে দুই কোটি ৯১ লাখ ৩২ হাজার টাকা জরিমানা গুনতে হয়েছে রাজধানীর হোটেল রেস্টুরেন্টগুলোকে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2018 MuktoNews.Com
Design & Developed BY DevelopBD.Com